আশুলিয়ায় ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রশাসনসহ সাভার উপজেলা আ.লীগের হস্তক্ষেপ কামনা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান (হাবিব) তিনি দীর্ঘ তিন যুগেরও বেশি সময় যাবৎ সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার নবীনগর এলাকায় বেশ সুনামের সহিত ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। এবং তার বাড়ি মার্কেটসহ একাধিক বৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এছাড়া তিনি টাট্রিবাড়ী সোসাইটি এলাকায় স্থায়ীভাবে বসবাসও করে আসছে।

দীর্ঘদিন স্থায়ী বসবাস ব্যবসা পরিচালনায় তার রয়েছে ব্যপক সুনাম ও উল্লেখযোগ্য খ্যাতি অর্জন করেন ব্যবসায়ী হাবিব। তিনি দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের সাথে রাজনৈতিকভাবে জরিত এবং স্থানীয় আ.লীগের অতিত দুরদিনগুলোতে অংশগ্রহণ ছিল লক্ষ্যনীয় ও একজন মাঠ পর্যায়ের নিবেদিত সাহসী রাজনৈতিক কর্মী এবং একথায় বলতে হয় আওয়ামী লীগের দূর-সময়ের কান্ডারী।

ব্যবসায়ী হাবিবের অভিযোগ আমার অর্থ সম্পদ টাকা পয়সা ব্যবসা বানিজ্য ও এলাকায় সুনাম খ্যাতি’র উপর ইর্ষাম্বিত হয়ে এলাকার কিছু চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী মাদক ব্যবসার পৃষ্টপোষনকারীরা আমার নিকট মোটা অংকের টাকা চাঁদাদাবী করেন আমি তাদের উক্ত দাবিকৃত চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করতে থাকেন এবং আমার বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপপ্রচার চালানোসহ এলাকার বিভিন্ন লোকজন দিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে। এতে করে এলাকায় এবং সমাজে আমার ও আমার পরিবারের লোকজনের সম্মান ক্ষুণ্ণ হয়েছে। আমি এদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ হিসেবে মানহানী মামলা করবো এবং এসকল আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ভিত্তিহীন উদ্যোশ প্রণোদিত ও আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্যই করা হয়েছে বলে দাবি করেন হাবিব।

অপপ্রচারকারীরা বলছে হাবিব একজন জামায়াতের লোক সে জামায়াতের রাজনীতি করেন। অথচ এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানাযায়,হাবিব একজন তিন যুগেরও বেশি সময় এই এলাকায় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে ওতপ্রোতভাবে জরিত। স্থানীয়ভাবে সাভার আশুলিয়া ও হাবিবের স্থায়ী বসবাসরত পাথালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রশংসাপত্র আ.লীগ সদস্য সনদ রয়েছে ব্যবসায়ী হাবিবের।
এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা ও থানা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে একাধিক আওয়ামী লীগের নেতা এই হাবিবকে আ.লীগের একনিষ্ঠ কর্মী
হিসেবে চিনেন। এবং দীর্ঘদিন যাবৎ হাবিব আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে যোগদান সহ আমাদের সাথে দলের হয়ে কাজ করছেন বলে এই প্রতিবেদককে জানান স্থানীয় আ.লীগ নেতারা।

হাবিব বলেন,আমার বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা ও অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় একাধিক জিডি ও অভিযোগ রয়েছে। এবং আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলাগুলো তদন্তপূর্বক প্রত্যাহারের জোর দাবি করছি। এবং মাননীয় ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ও স্থানীয় প্রশাসনসহ সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নীতিনির্ধারকদের সু-দৃষ্টি ও হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ব্যবসায়ী হাবিবের বিরুদ্ধে মামলা ও অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আশুলিয়া থানার উপ-পরির্দশক সেলিম রেজা বলেন, হ্যাঁ হাবিবের বিরুদ্ধে দুটি মামলা আছে করোনার কারনে তদন্ত করতে পারিনি। পরে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *