কাজাখস্তান উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৪

অনলাইন ডেস্ক

 

কাজাখস্তানের আলমাটি বিমানবন্দর থেকে যাত্রা শুরুর কিছুক্ষণ পরেই উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৪ জনে দাঁড়িয়েছে। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে বিবিসি অনলাইন। স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার সকালে দেশটির আলমাটি বিমানবন্দর থেকে ৯৫ জন যাত্রী ও ৫ জন ক্রু নিয়ে উড়োজাহাজটি যাত্রা শুরু করার কিছুক্ষণ পরেই একটি ভবনের ওপর গিয়ে বিধ্বস্ত হয়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন উদ্ধারকর্মীরা। এই দুর্ঘটনায় শিশুসহ অন্তত ৬০ জন আহত হয়েছেন। তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ২০ জনের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছে রয়টার্স।কাজাখস্তানের আলমাটি বিমানবন্দর থেকে যাত্রা শুরুর কিছুক্ষণ পরেই উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৪ জনে দাঁড়িয়েছে। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে বিবিসি অনলাইন।

স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার সকালে দেশটির আলমাটি বিমানবন্দর থেকে ৯৫ জন যাত্রী ও ৫ জন ক্রু নিয়ে উড়োজাহাজটি যাত্রা শুরু করার কিছুক্ষণ পরেই একটি ভবনের ওপর গিয়ে বিধ্বস্ত হয়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন উদ্ধারকর্মীরা। এই দুর্ঘটনায় শিশুসহ অন্তত ৬০ জন আহত হয়েছেন। তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ২০ জনের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত বার্তা সংস্থা রয়টার্সের একজন প্রতিবেদক জানিয়েছেন, বিমানবন্দর এলাকা ভারী কুয়াশায় আচ্ছন্ন ছিল। তবে ঠিক কী কারণে উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।কাজাখস্তানের বৃহত্তম শহর আলমাটি থেকে উড়োজাহাজটি রাজধানী নূর–সুলতানের দিকে যাচ্ছিল। আলমাটি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যাত্রা শুরুর সময় এতে ৯৫ জন যাত্রী ও ৫ জন ক্রু ছিলেন। স্থানীয় সময় সকাল ৭টা ২২ মিনিটে উড়োজাহাজটি একটি দেয়ালের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে দোতলা বাড়ির ওপর বিধ্বস্ত হয়।

দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখতে বিশেষ তদন্ত কমিশন তৈরির ঘোষণা দিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এক টুইট বার্তায় দেশটির প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ নিহতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেছেন, এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী সবাইকে আইন অনুযায়ী উপযুক্ত শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।ঘটনাস্থলের কিছু ভিডিওচিত্র অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে। এমন একটি ভিডিওতে উদ্ধারকর্মীদের কাজ করতে দেখা যায়। এক নারী দ্রুত অ্যাম্বুলেন্সের জন্য চিৎকার করছেন এমন দৃশ্যও দেখা গেছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *