কাশিমপুর থানা পুলিশ উদ্ধার করল মৃতদেহ মর্গে পাঠানোর সময় হয়ে গেল জীবিত

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কাশিমপুর থানার ডিউটি অফিসারের মোবাইল ফোনে ইং ২২ মার্চ ২০২০ইং তারিখ রবিবার অনুমানিক এক ঘটিকার সময় কাশিমপুর থানার সারদাগঞ্জ ৪নং ওয়ার্ড (জামাল কাজীর বাড়ীর ভাড়াটিয়া) মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের অজ্ঞাত কারনে মৃত্যুর সংবাদ আসে কাশিমপুর থানা পুলিশের কাছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে কাশিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব আকবর আলী খান সাহেবের নির্দেশনায় থানা এলাকায় কিলো-৩ ডিউটিরত এসআই মোহাম্মদ মাহাবুব সঙ্গীয় ফোর্সসহ তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ বাড়ীর মেইন কেচি গেইটের তালা ভাঙ্গিয়া জাহাঙ্গীর আলমের রুমের দরজাও ভাঙ্গিয়া বাথরুম হইতে তাহার মৃতদেহটি উদ্ধার করেন। উক্ত বিষয়টি সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (কোনাবাড়ী জোন) জনাব মোঃ আহসানুল হক ও অফিসার ইনচার্জ কাশিমপুর থানা জনাব আকবর আলী খান সাহেবকে অবহিত করিয়া তাহার মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য গাড়ীতে উঠানোর সময় হঠাৎ করে মৃত ব্যক্তির গলার মধ্যে গড়গড় শব্দ করে ওঠে। তাৎক্ষনিক ভাবে এসআই মোহাম্মদ মাহাবুব মৃত জাহাঙ্গীর আলমের বুকে চাপ দিলে তাহার শ্বাস-প্রশ্বাস শুরু হয় এবং দ্রুতগতিতে তাহাকে পুলিশের গাড়ী যোগে শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে যান। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত ডাক্তার জানান জাহাঙ্গীর আলম এর শারীরিক অবস্থা মোটামুটি ভাল। কাশিমপুর থানার এসআই মোহাম্মদ মাহাবুব এর উপস্থিত বুদ্ধিমত্তার কারনে জাহাঙ্গীর আলম জীবন ফিরে পেলেন। জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর মহানগর টঙ্গী পশ্চিম থানার খাঁ-পাড়া এলাকার মোঃ আব্দুস সোবাহান এর ছেলে। তিনি বর্তমানে শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মেমোরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *