খাবার দিতে দেরি হওয়ায় মাকে কুপিয়ে হত্যা

অনলাইন ডেস্কঃ

খাবার দিতে দেরি হওয়ায় নিজের মাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে গণেশ (৩৫) নামের এক যুবক। এ সময় মাকে বাঁচাতে বোন এগিয়ে আসলে তাকেও ছরিকাঘাত করে ওই যুবক।
শনিবার (৩০ নভেম্বর) ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের বাঘোলিতে। পরে পুলিশ এসে ওই যুবককে গ্রেফতার করেছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।
বাঘোলির গণেশনগর এলাকায় একটি ফ্ল্যাটে মা লীলাবাঈ শ্যামরাও চহ্বাণ এবং বোন প্রিয়ার সঙ্গে থাকতেন গণেশ।
পুালিশ জানায়, একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন গণেশ। শনিবার রাত ৮টার দিকে বাড়ি ফিরেন তিনি। কিন্তু ফিরে দেখেন, তখনও খাবার তৈরি হয়নি। তা নিয়ে মায়ের সঙ্গে কথা কাটাকাটি শুরু হায় তার। আর তাতেই মেজাজ হারান গণেশ। রান্না ঘর থেকে ছুরি এনে মাকে আঘাত করেন।
বাধা দিতে এলে বোন প্রিয়াকেও কোপান গণেশ। সেই সময় চিৎকার-চেঁচামেচি শুনে ফ্ল্যাটে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা।
গুরুতর জখম অবস্থায় লীলাবাঈ এবং প্রিয়াকে উদ্ধার করে স্থানীয় লাইফলাইন নামে হাসপাতালে নিয়ে যান তারা।
সেখানে লীলাবাঈকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। তবে প্রাণে বেঁচে যান প্রিয়া। বর্তমানে হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি আছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *