ছিনতাইকারীর শিকার ইবি ছাত্রী: প্রতিবাদে বিক্ষোভ

নিউজ ডেস্কঃ

 

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) গণিত বিভাগের চতুর্থ বর্ষের এক ছাত্রী ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কুষ্টিয়ার টালিপাড়া এলাকায় ছিনতাইয়ের শিকার হন তিনি। এসময় তিনি বৃদ্ধাঙ্গুলি কেটে আহত হন।

উক্ত ঘটনার প্রতিবাদে রাতেই ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা। রাত সাড়ে ৯ টায় ক্যাম্পাসের জিয়া মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

এসময় আরবী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষার্থী আব্দুর রউফ, বাংলা বিভাগের জিকে সাদিক, লোকপ্রশাসন বিভাগের আকতার হোসেন আজাদ, গণিত বিভাগের শামিম আহমেদ, আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শামিমুল ইসলাম সুমনসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘২০১৯ সালে আইন শৃঙ্খলার অবনতি সবচেয়ে বেশি হয়েছে। আর এর মাত্রা ক্রমগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। অসংখ্য নারী নির্যাতন ও ধর্ষনের ঘটনা ঘটে চলেছে। কিন্তু কোনোটিরই সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচার হয়নি। অন্যায়কারীরা ক্রমাগত ছাড়া পেয়ে পেয়ে আজকে এই অবস্থায় এসেছে। যারা আমাদের বোনের উপর হামলা করেছে তাদের দ্রুত গ্রেফতার করে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে বিচার নিশ্চিত করতে হবে।’

জানা যায়, আহত ওই ছাত্রীর নাম জান্নাতুল ফেরদৌসি ইরা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের পিছনে (টালিপাড়া এলাকা) মায়ের দোয়া নামে একটি মেসে থাকেন। সন্ধ্যায় গলি পথে হেঁটে বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলে করে দুইজন ছিনতাইকারী তার হাতে থাকা ব্যাগ জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। ব্যাগ জোর করে টান দেয়ায় ওই ছাত্রীর বাম হাতের বৃদ্ধা আঙ্গুলে কিছুটা কেটে গেছে। ব্যাগে ছাত্রীর ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন, এক হাজার টাকা, জাতীয় পরিচয় পত্র, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয়পত্র, লাইব্রেরি কার্ডসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছিল। এ ঘটনায় কুষ্টিয়া পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রাস্তার সিসি ফুটেজ দেখে ছিনতাইকারী সনাক্ত করার চেষ্টা করছেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন বলেন, ‘বিষয়টি শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। ওই ছাত্রী সুস্থ রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ছিনতাইকারী সনাক্তের চেষ্টা করছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *