ঠাকুরগাঁওয়ে ঈদুল আযহা উপলক্ষে  বাজারের ছাগলের দাম বেশি গরুর  দাম কম !

 ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি:
ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলা হাট গুলোতে ছাগলের বাজার জমে উঠতে শুরু করেছে। ঠাকুরগাঁও  বড়খোচাবাড়ি ছাগলের জন্য এটি সবচেয়ে বড় বাজার। ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছাগল আসতে শুরু করেছে এই বাজারে। পবিত্র ঈদ-উল আজহা উপলক্ষে ছাগল বেপারিরা এ বাজারে ছাগল আনছেন। যাদের গরু কেনার সামর্থ্য নেই তারা ছাগল কোরবানি দেন। দাম নাগালের মধ্যে থাকায় অনেকেই কোরবানির পশু হিসেবে ছাগলকে বেছে নেন।
বাজার ঘুরে দেখা গেলো যে, বিক্রেতা এবার বাজারের সবচেয়ে বড় ছাগলটির দাম হেকেছে ১২ থেকে ১৫ হাজার টাকা। বিক্রেতা রবি, সাংবাদিক কে বলেন, বাজারে এবার পর্যাপ্ত ছাগল আসছে এবং আরো আসবে। বাজার ব্যবস্থা মন্দ নয়। আশা করছি, গতবারের তুলনায় এবার ভালো মুনাফা পাবো। তিনি আরো বলেন, আমি এবং আমার পরিবার অনেক কষ্ট করে ছাগল পালন করেছি। তাই কিছুটা ভালো দামের আশা করছি।
এদিকে দিনেশ চন্দ্র বলেন এবার গরুর লাম্পই ও গুটি রোগ হওয়ায় গরুর বাজারের দাম কম । কিন্তু ছাগলের বাজারের দাম বেশি।
 বাজারের ইজারাদাররা সাংবাদিক কে জানালেন, আমাদের বাজারে প্রতিবারের মত এবারও ছাগল আসছে। বেচাকেনা মাত্র শুরু হয়েছে। আশা করছি রবি-সোমবার থেকে বিক্রী বাড়বে। এর মধ্যে অনেক ক্রেতারা এসে বাজার দেখে যাচ্ছে। বিক্রেতারা আরো বলেন, শহর অঞ্চলে ছাগল রাখা অনেক কষ্ট তাই এখন র্পযন্ত তেমন একটা বিক্রী না হলেও কোরবানের দুই বা তিনদিন আগে আশা করছি বিক্রী বাড়বে। অনেকেই এখানে দশ বছর যাবৎ ছাগল বিক্রী করছেন তারা সকলেই এই বার ভালো দাম প্রত্যাশা করতেছেন। এই বাজারে দেশের পাশাপাশি ভারত থেকেও অনেক ছাগল আসছে বলে জানিয়েছেন।
ঠাকুরগাঁও জেলা  প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন জানান আসন্ন কোরবানির ঈদকে ঘিরে ঠাকুরগাঁও গরুর খামার ১১৭৮২টি আর গরুর সংখ্যা ৮০৪৫৬৭  টি কিন্তু গরুর রোগ হওয়ার পর থেকে গরুর দাম নাই। তাই এবার ছাগলের চাহিদা অনেক বেশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *