দেশব্যাপী গণপরিবহন৫ মে পর্যন্ত  বন্ধ রাখারও সিদ্ধান্ত

অনলাইন ডেস্ক

করোনাভাইরাস বিস্তার রোধ করতে অধিকতর সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সাধারণ ছুটি আগামী ৫ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এর সঙ্গে মিল রেখে ৫ মে পর্যন্ত দেশব্যাপী গণপরিবহন বন্ধ রাখারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যদিও ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বলেছিল, পরিস্থিতি বিবেচনায় পর্যায়ক্রমে গণপরিবহন চালু করা হবে।

শুক্রবার সরকারের সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-প্রধান তথ্য কর্মকর্তা আবু নাছের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।তবে জরুরি পরিষেবাগুলো, যেমন, খাদ্যদ্রব্য, সড়ক ও নৌপথে সব ধরনের পণ্য, রাষ্ট্রীয় প্রকল্পের মালামাল, জ্বালানি, ওষুধ, ঔষধশিল্প, চিকিৎসাসেবা ও চিকিৎসা বিষয়ক সামগ্রী পরিবহন, শিশুখাদ্য, গণমাধ্যম, ত্রাণ পরিবহন, কৃষিপণ্য, শিল্পপণ্য, সার ও কীটনাশক, পশুখাদ্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উৎপাদিত পণ্য, দুগ্ধ ও দুগ্ধজাত পণ্য এবং জীবনধারণের মৌলিক পণ্য উৎপাদন ও পরিবহন- এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে। এ ক্ষেত্রে পণ্যবাহী যানবাহনে যাত্রী পরিবহন করা যাবে না।

এর আগে বৃহস্পতিবার সাধারণ ছুটি আগামী ২৬ এপ্রিল থেকে ৫ মে পর্যন্ত আরও ১০ দিন বাড়ানো হয়। পাশাপাশি এই সময়েও সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে বলেও নির্দেশনা দেয় সরকার। তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় শিল্প-কারখানা এবং গণপরিবহন পর্যায়ক্রমে উন্মুক্ত করা হবে বলে জনপ্রশাসনের প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়।গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী পাওয়ার পর গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল এবং পরে ৫ থেকে ৯ এপ্রিল, এরপরে ১৪ এপ্রিল এবং সর্বশেষ ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়েছিল।

এই সাধারণ ছুটিতে গণপরিবহন ছাড়াও জরুরি সেবায় নিয়োজিত ছাড়া সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। পাশাপাশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে ১৮ মার্চ থেকে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *