ধামরাইয়ে মসজিদের ইমামের স্ত্রীকে যৌণ হয়রানি, প্রতিবাদ করায় মিথ‍্যা মামলা ও বাড়ীতে হামলা ভাংচুর 

মাইনুল ইসলামঃ

ধামরাইয়ে তিন সন্তানের জননীকে যৌণ হয়রানীতে ব‍্যর্থ হয়ে প্রতিবাদের সম্মুখীন হয়ে উল্টো ভুক্তভোগী পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ‍্যা মামলা বসতবাড়ীতে হামলা ভাংচুর হুমকি ধামকী দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় রহিমুদ্দিনের ছেলে বখাটে রতন ও মানিকের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিক্তিতে জানাযায়, ধামরাই উপজেলার চন্দ্রাইল,বাড়ীগাঁও রহিমুদ্দিনের বাড়ীর ভাড়াটিয়া মুফতি আবুল হাসানের স্ত্রী তিন সন্তানের জননী সোমাইয়াকে বাড়ীর মালিকের ছেলে রতন প্রতিনিয়ত অশ্লীল কথাবার্তা ও যৌণ হয়রানীর চেষ্টা অব‍্যহত রাখে।
সোমাইয়ার স্বামী মুফতি আবুল হাসান সাভারের ভাকুর্তা ইউনিয়নের একটি মসজিদে ইমামতির সুবাদে সেখানেই অবস্থান করতে হয়। এবং সোমাইয়ার তিন সন্তান স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করেন ও সোমাইয়া ভাড়া বাড়ীতে একাই থাকতে হয়। এর সুবাদে সুযোগ বুঝে বাড়ীর মালিকের বখাটে ছেলে স্ত্রী পরিত্যক্ত রতন দিনে রাতে বিভিন্ন সময় সোমাইয়াকে একা পেয়ে বিভিন্ন ধরনের খারাপ বাক্য অশ্লীল কথাবার্তা সহ যৌণ হয়রানিমূলক কর্মকাণ্ডের চেষ্টা করত। সোমাইয়া এরকম কর্মকাণ্ড সইতে না পেরে তার স্বামী মুফতি হাসানকে জানায়, হাসান বিষয়টি বখাটে রতনের বাবা রহিমুদ্দিনকে জানালে তিনি বিষয়টি মিমাংসা করে দেওয়ার জন‍্য আশ্বস্ত করেন। রহিমুদ্দিনকে ঘটনাটি জানানোর পর কয়েকদিন থেমে থাকলেও পরবর্তীকালে বখাটে রতন আবারো পূর্বের ন‍্যায় করতে থাকেন এবং এনিয়ে উভয় পরিবারের মাঝে ঝামেলা ও বিরোধ সৃষ্টি হয়। এবার বাড়ীর মালিক রতনের বাবা রহিমুদ্দিন সোমাইয়ার স্বামী হাসানকে ভেকে ক্ষমা চেয়ে বাসা ছেড়ে অন‍্যত্রে চলে যেতে বলেন।এমতাবস্থায় তখন সারাদেশে করোনা মহামারির কারনে সাধারণ ছুটি থাকায় হাসান নিজের কর্মস্থলে পরিবারের সদস্যদের নিতে না পেরে এবং উপায়ান্তর না দেখে বড় চন্দ্রাইল দক্ষিণপাড়া আ.ওহাব মিয়ার বাড়িতে বাসা ভাড়া নিয়ে বউ বাচ্চাদের রেখে সাভার কর্মস্থলে ফিরে যায়। মুফতি হাসান রহিমুদ্দিনের বাড়ী ছেড়ে আসার কিছুদিন পর গত ১০মে ২০২০ইং তারিখে স্ত্রী সোমাইয়া ও স্বামী হাসানের বিরুদ্ধে রহিমুদ্দিনের বড় ছেলে মানিকের স্ত্রী রোমানা বাদী হয়ে ধামরাই থানায় প্রতারণা করে দুই লাখ টাকা ও আট ভরি স্বর্ণ অলংকার আত্নসাত করেছে মর্মে মামলা দায়ের করেন যাহার নং-০৯ সে মামলায় বর্তমানে সোমাইয়া জামিনে আছেন।
উক্ত ঘটনাটি এখানেই শেষ নয়….
মুফতি আবুল হাসান স্থানীয় বাড়ী বাগেরহাট জেলায় ও তার স্ত্রীর বাড়ী গোপালগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার ভোজেরগাতী গ্রামে তারা তিন ছেলে সন্তান নিয়ে জীবন জীবিকার তাগিদে দীর্ঘদিন যাবৎ সুনামের সাথে সাভার ও ধামরাই বসবাস করে আসছে বলে দাবি করেন ভুক্তভোগী মুফতি আবুল হাসান ও তার পরিবার। বর্তমানে তারা ধামরাইয়ের চন্দাইল দক্ষিণপাড়া আ.ওহাব মিয়ার ভাড়া বাসায় বসবাস করেন।
ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগী মুফতি আবুল হাসান বলেন,আমি আগে ধামরাই বড় চন্দাইল বাড়ীগাঁও স্থানীয় একটি মসজিদে ইমাম হিসেবে চাকুরী করতাম সে সুবাদে আমার স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে রহিমুদ্দিনের ভাড়া বাড়ীতে উঠে ভালো ভাবেই বসবাস করতে থাকি। বেশকিছুদিন পর মসজিদের চাকুরীটা কোন কারনবষত চলে যায় এবং আমি সাভার ভার্কুতা ইউনিয়নের মুগড়াকান্দার একটি মসজিদে চাকুরী পেলে বিবি বাচ্চাদের রহিমুদ্দিনের ভাড়া বাসায় রেখে চাকুরী করতে চলে যাই। আর এর সুযোগে বাড়ী মালিকের স্ত্রী তালাক দেওয়া ছোট ছেলে বখাটে চরিত্রহীন রতন আমার স্ত্রীকে একা পেয়ে বিভিন্ন সময় দিনেরাতে ইভটিজিং যৌণ হয়রানিমূলক কর্মকাণ্ডের চেষ্টা করে ও প্রতিনিয়ত উত‍্যক্ত করতে থাকেন। আমি অশ্লীল কর্মকাণ্ডের ও যৌণ হয়রানির প্রতিবাদ করি এবং বিভিন্ন সমস্যার কারনে রহিমুদ্দিনের বাসা ছেড়ে বর্তমান চন্দাইল দক্ষিণ পাড়া আ.ওহাব মিয়ার ভাড়া বাসায় স্ত্রী সন্তানদের রেখে এখন সাভারের ভার্কুতার মসজিদে ইমাম হিসেবে চাকুরী করছি। এবং আমি উপরক্ত ঘটনাবলীর বর্নণা অনুযায়ী সব বিষয়ে প্রতিবাদ করাতে তারা আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে মিথ‍্যা নাটক সাজিয়ে আমার স্ত্রী ও আমার বিরুদ্ধে ধামরাই থানায় মানিকের স্ত্রী রোমানাকে বাদী করে রহিমুদ্দিন ও তার দুই ছেলে মিলে প্রতারণা ও টাকা ও স্বর্ণ অলংকার আত্নসাতের মিথ‍্যা মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠায় এবং বর্তমানে আমার স্ত্রী ও আমি বিজ্ঞ আদালতের জামিনে আছি।
মুফতি হাসান আরো বলেন, এতকিছুর পরও তারা ক্ষান্ত হয়নি উক্ত ঘটনার জের ধরে আমাকে হুমকি ধামকী অব‍্যহত রেখেছে ও আমার পরিবারের উপর হামলা করেন। গত ৫ জুন দিবাগত মধ‍্যরাতে আনুমানিক ২:৩০ মিনিটের সময় রহিমুদ্দিনের দুইছেলে মানিক ও রতনসহ আরো অজ্ঞাতনামা চারপাঁচজন মিলে আমার বর্তমানে অবস্থানরত ভাড়া বাসায় আমার স্ত্রী সন্তানদের একা পেয়ে হত‍্যার উদ্দেশ্যে কেচি গেটের তালা ভেঙ্গে আমার স্ত্রীর শয়নকক্ষের পাশের রুমের তালা ভাঙ্গে এবং ভিতরে ঢুকে রুমের আসবাবপত্র কিতাবয়াদী গ‍্যাসের চুলাসহ জিনিসপত্র ভাংচুর করে ও হামলা চালায় এমতাবস্থায় আমার স্ত্রী আমাকে ফোন করেন এবং ডাক চিৎকার করতে থাকলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এবং আমার স্ত্রী বিদু‍্যৎ বাতির আলোতে হামলাকারীদের চিনতে পারেন এবং তাদের সকলের হাতে ছ‍্যান রামদা হাতুরী চাপাতি চাকু ও লোহার রড ছিল এবং তারা পালিয়ে যাওয়ার সময় এবিষয় কোন প্রকার মামলা করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করেন। এবং আমি পরের দিন বাসায় এসে সবকিছু উপলব্দি করি ও থানায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করি। আমি এই হামলা ভাংচুর ও আমার পরিবারের উপর হয়রানিমূলক মিথ‍্যা মামলার নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে মামলা হতে অব‍্যহতি চাই। এবং দায়ীদের গ্রেপ্তার করে দৃস্টান্তমুলক শাস্তি ও বিচার দাবি করছি।
এঘটনার স্থানীয় প্রত‍্যক্ষদর্শীরা বলেন, পূর্ব শত্রুতার কারনেই পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালিয়েছে এটা কোন চুরি বা ডাকাতির ঘটনা নয় এটা তাদের পূর্ব বিরোধের কারনেই ঘটানো হয়েছে। তবে উক্ত রাতের হামলার ঘটনার আমরা এলাকাবাসী তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
মুফতি আবুল হাসান ও তার স্ত্রী সোমাইয়ার অভিযোগের ভিক্তিতে রতনের কাছে জানতে

চাইলে তিনি সবকিছু অস্বীকার করেন ও এই প্রতিবেকের সাথে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করে ফোনটা কেটে দেয়।
এবিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সেকেন্দারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

ধামরাইয়ে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২

 ধামরাইয়ের ঢুলিভিটা এলাকায় বিপরীতমুখী দ্রুতগতির দুটি মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও দুজন। শুক্রবার ভোরে এ দুর্ঘটনা...

Read more

সর্বশেষ

ADVERTISEMENT

© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত


সম্পাদক ও প্রকাশক : মাে:শফিকুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক : এডভােকেট-মোঃ আবু জাফর সিকদার
প্রধান প্রতিবেদক: মোঃ জাকির সিকদার

কার্যালয় : হোল্ডিং নং ২৮৪, ভাদাইল, আশুলিয়া, সাভার, ঢাকা-১৩৪৯

যোগাযোগ: +৮৮০ ১৯১ ১৬৩ ০৮১০
ই-মেইল : [email protected]

দৈনিক আমাদের খবর বাংলাদেশের একটি বাংলা ভাষার অনলাইন সংবাদ মাধ্যম। ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ থেকে দৈনিক আমাদের খবর, অনলাইন নিউজ পোর্টালটি সব ধরনের খবর প্রকাশ করে আসছে। বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রচারিত অনলাইন সংবাদ মাধ্যমগুলির মধ্যে এটি একটি।

ADVERTISEMENT
x