পুলিশের গাড়ির ধাক্কায় সাংবাদিক আহত উল্টো ক্ষতিপূরণের দাবি

নিউজ ডেস্কঃ

পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় পুলিশের গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়েছেন বার্তা২৪ এর অপরাধ বিষয় প্রতিবেদক শাহরিয়ার হাসান। শনিবার ধানমন্ডি ২৭ এর মোড়ে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পুলিশ সদর দপ্তরকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

শাহরিয়ার বলেন, ‘আমি বাইক চালিয়ে ধানমন্ডি থেকে অফিসে ফিরছিলাম। এসময় একটা পাজেরো গাড়ি আমাকে পিছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে বাইক নিয়ে আমি বাসের সঙ্গে ধাক্কায় খেয়ে রাস্তায় পড়ে যায়। পরে উঠে দাঁড়াতেই দেখি গাড়িটা দ্রুত গতিতে চলে যায়। বাইক স্টার্ট দিয়ে দ্রুত পাজেরো গাড়িটি গতিরোধ করি।’ এসময় চালককে নামতে বললে তিনি বলেন- ‘রাস্তা ছেড়ে সরে যান।’

পরে পুলিশের পোষাক পড়া একজন গাড়ি থেকে নেমে বলেন কী হয়েছে? আমি বলি গাড়ির ভেতরে কে আছে তাকে নামতে বলুন। এমন ভাবে গাড়ি চালাচ্ছেন আমি তো এখনি মরে যাচ্ছিলাম। ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিলেন দুঃখ প্রকাশ তো করতে পারতেন।

চালক (পুলিশের পোষাক পরা) উত্তরে বলেন, ‘সরি কি বলবো। মরে তো যাননি। ভেতরে ডিআইজি স্যার। রাস্তা ছাড়েন।’ এই বলে আমার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন।শাহরিয়ার বলেন, ‘ঘটনার বেশ কিছু সময় পর গাড়ি থেকে পুলিশ কর্মকর্তার ব্যক্তিগত অফিসার বেরিয়ে আমার বাইকের ছবি তুলেন।’ ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘রাস্তা ছাড়েন ভাই। ডিআইজি স্যার বসে আছেন।’

এসময় গাড়িটির চালক উল্টো বলেন, ‘ক্ষতিপূরণ দেন। না হয় ট্র্যাফিক ডাকি।’ উত্তরে আমি বলি- ‘ডিআইজি তো কি হয়েছে। গাড়ি চাপা দিয়ে মেরে ফেলবেন একটা সরি পর্যন্ত বলবেন না। নামতে বলেন, তার মুখটা দেখি।’

তখন আবারো আমাকে বলা হয়, ‘স্যার বিরক্ত হচ্ছে ভাই, রাস্তা ছাড়েন।’ পরে পায়ের ব্যথা অনুভব হওয়ায় তাদের গাড়িটি ছেড়ে দি বলেন শাহরিয়ার।

এবিষয়ে পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মিডিয়া) মীর সোহেল রানা বলেন, ‘সাংবাদিকের সঙ্গে এমন আচরণ দুঃখজনক। আমরা গাড়ির নম্বর পেয়েছি। ওই গাড়িতে কে ছিল বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *