সমুদ্রে ভাসছে রুশ তেলবোঝাই কার্গো, ক্রেতা নেই

রাশিয়ার কয়েকটি জাহাজ প্রায় ৬ কোটি ২০ লাখ ব্যারেল ‘উরালস ক্রুড অয়েল’ নিয়ে সমুদ্রে ভেসে আছে। এনার্জি এনালাইসিস ফার্ম ভোরটেক্সা বলছে, রুশ ব্যবসায়ীরা এই তেল বিক্রির জন্য ক্রেতা খুঁজে পাচ্ছেন না।

ইউক্রেনে আক্রমণের জেরে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল আমদানির উপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। নিষেধাজ্ঞার ভয়ে অনেক দেশ রাশিয়া থেকে অপরিশোধিত তেল আমদানি এড়িয়ে চলছে।

ইউরোপীয় কমিশনও রাশিয়ার তেলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করছে। ভোরটেক্সা জানিয়েছে, যুদ্ধ পূর্ববর্তী সময়ের তুলনায় সমুদ্রে রাশিয়ার উরালস ক্রুড অয়েলের পরিমাণ গড়ে তিনগুণ বেড়েছে। চলতি মাসে রাশিয়ার সমুদ্রজাত তেল রপ্তানি প্রতিদিন গড় ৬৭ লাখ ব্যারেলে দাঁড়িয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি মাসের তুলনায় এই সংখ্যা ১৫ শতাংশ কম। ফেব্রুয়ারিতে গড়ে প্রতিদিন ৭৯ লাখ ব্যারেল তেল রপ্তানি হতো।

তবে রাশিয়ার তেল রপ্তানি পরিস্থিতি এখনো তুলনামূলক শক্তিশালী মনে হচ্ছে। যদিও হস্টন ভিত্তিক জ্বালানি বিশ্লেষক ক্লে সিগলের মতে, সমুদ্রে রাশিয়ার বিপুল পরিমাণ তেল জমে যাচ্ছে।

বর্তমান দেশটির ১৫ শতাংশ উরালস ক্রুড অয়েল সমুদ্রে জমা হচ্ছে। সেগুলোর কোনো গন্তব্য নেই। কিছু তেল অবশ্য অজ্ঞাত ক্রেতাদের কাছে পাঠানো হচ্ছে। তবে অনেক তেল অবিক্রিত থেকে যাচ্ছে।

এখন রাশিয়ার বেশিরভাগ অপরিশোধিত তেল এশিয়ায় আসছে। বিশেষত ভারত এবং চীনে। যদিও এখনো রাশিয়ার তেলের একটি বড় অংশ ইউরোপেও যাচ্ছে। সূত্র: রয়টার্স

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *