সাভারে নিলা রায় হত্যার প্রধান আসামি মিজান সাত দিনের রিমান্ডে

সাভার প্রতিনিধি:
সাভারের আলোচিত স্কুলশিক্ষার্থী নিলা রায় হত্যার ঘটনায় আসামি গ্রেফতার নিয়ে ভিন্ন বক্তব্য দিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে সাভারের রাজফুলবাড়িয়া এলাকার কর্নেল ব্রিক ফিল্ডের পাশের পারভেজের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান অভিযুক্ত মিজানুর রহমানসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িত মিজানুরের দুই সহযোগী শাকিব ও জয়কে গ্রেফতারের প্রথম দফায় পুলিশের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে জানানো হলেও, শনিবার সকালে সাভার মডেল থানায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে শাকিব ও জয়কে গ্রেফতারের বিষয়টি অস্বীকার করেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার।

এদিকে আসমি মিজানুরকে শুক্রবার রাতে আটক করে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার দুপুরে দশ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।এর আগে শুক্রবার রাতে সাভার মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম রাজফুলবাড়িয়া এলাকা থেকে প্রধান আসামি মিজানুর ও তার দুই সহযোগীকে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত ছুরিসহ গ্রেফতারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজফুলবাড়িয়া এলাকার কর্ণেল ব্রিক ফিল্ডের পাশের পারভেজের টিনসেড বাড়ির একটি কক্ষ থেকে মিজানুর রহমান ও দুই সহযোগী শাকিব (২১) ও জয়কে (২০) গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার করা হয়। এ মামলায় মোট ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।শাকিব ও জয়কে গ্রেফতারের বিষয়টি সংবাদ সম্মেলনে অস্বীকার করার পর পুলিশের ভিন্ন বক্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে, ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, কে বা কারা আপনাদের এই তথ্য দিয়েছে, তা আমার জানা নেই।

আমরা এখন পর্যন্ত মামলা এজাহারনামীয় তিন আসামিসহ মোট চারজনকে গ্রেফতার করেছি। শাকিব বা জয় নামে কাউকে আটক বা গ্রেফতার করা হয়নি।এদিকে এক রাতের ব্যবধানে পুলিশের এমন ভিন্ন বক্তব্য নিয়ে নতুন করে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে জনমনে। অন্যদিকে সাভার মডেল থানার একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, গত ২০ সেপ্টেম্বর ঘটনার রাতে নিলা তার বড়ভাই অলকের সঙ্গে আবুল কাশেম স্বন্দ্বীপ সড়কে (থানা রোড) ডাক্তার দেখাতে আসে। পরে তারা ক্যাফে মেট্্েরা নামে একটি রেস্টুরেন্টে গিয়ে নাস্তা খান।

মিজানুর সেখানে গিয়ে ঘুরে আসে। এরপর তাদের অনুসরণ করে মিজানুর। পরে নিলার ভাইকে সরিয়ে দিয়ে রাস্তা থেকে নিলাকে নিয়ে পরিত্যক্ত একটি বাড়িতে হত্যা করে মিজানুর। এসময় মিজানুরের আরও চার সহযোগী সেখানে উপস্থিত ছিল। উল্লেখ্য, সাভার পৌর এলাকার দক্ষিণপাড়া মহল্লার গার্লস স্কুলের পেছনে মিজানুরের বাবা আব্দুর রহমানের মালিকানাধীন একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নৃশংসভাবে খুন করা হয় নিলাকে।এঘটনার পরের দিন সাভার মডেল থানায় মামলা (নং-৩৮) দায়ের করা হলে মামালার প্রধান আসমি মিজানুরকে শুক্রবার রাতে আটক করে পুলিশ।

পরে তাকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার দুপুরে দশ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।অপরদিকে, স্কুলছাত্রী হত্যাকান্ডের ঘটনায় প্রধান আসামির ফাঁসির দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। সুশীল সমাজ, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনসহ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মানববন্ধনে উপস্থিত হয়ে একাত্মতা প্রকাশ করেন স্থানীয় সংসদ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান।

এসময় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও নিহত নিলার পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিতের আশ^াস দেন মন্ত্রী। মানববন্ধন কর্মসূচিতে সাভার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজীব, পৌর মেয়র আবদুল গণি, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মানিক মোল্লাসহ ২৬টি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *