সৌদি আরবের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় ২২টি ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোনের সাহায্যে হামলা

সৌদি আরবের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় ২২টি ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোনের সাহায্যে হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের সেনাবাহিনী। এর মধ্যে কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেল কোম্পানি আরামকোতে আঘাত হেনেছে।এসব তথ্য জানিয়েছেন ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি।

রবিবার রাতে তিনি বলেছেন, সৌদি আরবের রাস আল-তানুরা বন্দরে আরামকো তেল কোম্পানির ওপর আঘাত হানা হয়েছে। এছাড়া আসির ও জিযানে অবস্থিত কয়েকটি সৌদি সামরিক ঘাঁটিতে চারটি ড্রোন ও সাতটি ‘বদর’ ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালানো হয়েছে।

ইয়াহিয়া সারি বলেন, সৌদি আরবের আগ্রাসনের জবাব দেওয়াকে নিজের ন্যায্য অধিকার বলে মনে করে ইয়েমেন। সৌদি আগ্রাসন বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত হামলা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

সৌদি আরবের একটি সূত্র জানিয়েছে, ইয়েমেনি ক্ষেপণাস্ত্র বিভিন্ন স্থানে আঘাত হেনেছে। দাহারান থেকে কয়েকজন জানিয়েছেন, তারা প্রচণ্ড বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছেন।

২০১৫ সাল থেকে সৌদি জোট দারিদ্র্যপীড়িত ইয়েমেনের ওপর সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে আসছে। তবে যেসব লক্ষ্য নিয়ে সৌদি আরব ইয়েমেনে আগ্রাসন চালিয়েছে ছয় বছরের মাথায় এসে তার একটিও অর্জন করতে পারেনি বরং দিন দিন ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন আগ্রাসীদের বিরুদ্ধে শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *