সেহরি ও ইফতার বিতরণের পাশাপাশি কৃষকের ধান কেটে দিলেন যুবলীগ

করোনা মহামারী সংকটকে বিশ্ব, লকডাউন কে কেন্দ্র অর্থ সংকটে মধ্যবিত্ত্য অসহায় মানুষ। এই সংকটময় মুহূর্তে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক মো. কবির হোসেন সরকার ও যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া যুবলীগের পক্ষে আশুলিয়ার সকল ইউনিয়ন যুবলীগের নেতৃবৃন্দ নিয়ে সোমবার সকাল থেকে কৃষক আয়নাল গায়েনের দুই বিঘা জমির ধান কেটে বাড়িতে তুলে দেন। যুবলীগের নেতাকর্মীদের এ ধরনের উদ্যোগকে স্বাগত জানান এলাকা বাসী।

কৃষক আয়নাল গায়েন জানান, লকডাউনের মধ্যে ধান কাটার উপযুক্ত সময় হওয়া সত্ত্বেও অর্থ ও শ্রমিক সংকটের কারণে পাকা ধান কাটতে পারছিলাম না। এ ছাড়া এলাকায় যে শ্রমিক পাওয়া যায়, তাদের মজুরি খুব বেশি। ফলে ক্ষেতে ধান পাকার পরও তা কাটতে না পারায় কিছুটা ক্ষতির শঙ্কায় ছিলাম। আমার এমন অসহায়ত্বের কথা শুনে যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকার ও মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে টাকা-পয়সা ছাড়াই আমার দুই বিঘা ক্ষেতের ধান কেটে দেন।

আমি তাদের এ সাহায্যের কথা কখনো ভুলব না।
আশুলিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও আমাদের প্রিয় নেতা যুবলীগের সম্মানিত চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল ভাইয়ের অনুপ্রেরণায় অসহায় ও দরিদ্র কৃষকদের মাঝে সেহরি ও ইফতার বিতরণের পাশাপাশি উক্ত কৃষকের ধান কেটে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। কৃষক আয়নাল গায়েন দুই বিঘা জমির পাকা ধান কাটতে না পেরে বিপাকে পড়েন। তাঁর অসহায়ত্বের কথা শুনে আশুলিয়া থানার অন্তর্গত পাঁচটি ইউনিয়নের যুবলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এ ধান কেটে দিয়েছি।

এ সংকট কালে প্রয়োজনে খবর পেলে এমন আরও অসহায়দের ধান কেটে দেব আমরা যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এদিকে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে সেহরি ও ইফতারের সরর্বাহ মাসব্যাপী চলবে বলেও জানান তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *